রুটি মেকার কেনার আগে বিস্তারিত জানুন

আমরা সবাই জানি এখনকার সময়টায় অনেক ব্যস্ততার মধ্যে থাকতে হয় মানুষকে। ব্যস্ততার কারনে এখন আর মানুষ পিঁড়ি-বেলুনে রুটি বানায়না। রুটি মেকারের মাধ্যমে খুব সহজে কম সময়ে রুটি বানাতে আপনি। এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে নানান ধরনের রুটি মেকার। আপনি আপনার প্রয়োজনের ধরন অনুযায়ী কিনে নিতে পারবেন। অনেকেই রুটি মেকার সম্পর্কে বেশি কিছু জানেনা তাই তাদের জন্য আজ Feeglee.com নিয়ে এলো রুটি মেকার সম্পর্কে বিস্তারিত।

রুটি মেকারের প্রকারভেদঃ
রুটি মেকার ২ প্রকারের হয়ে থাকে যেমন
১) ইলেকট্রিক
২) হস্তচালিত

হস্তচালিতঃ
হস্তচালিত রুটি মেকার সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি হয়ে থাকে। এটি সাধারণত কাঠের ধারা তৈরি হয়ে থাকে। ছোট ও বহনযোগ্য এই যন্ত্রে আপনি অত্তি কম সময়েই অনেক গুলো রুটি বানাতে পারবেন। এখন কাঠের পাশাপাশি স্টেইনলেস সমীলের তৈরি ম্যানুয়াল রুটি মেকারও বাজারে পাওয়া যাছে। আপনি যদি ম্যানুয়াল রুটি মেকারে রুটি বানাতে চান তবে আপনাকে প্রথমে কাঁচা বা সিদ্ধ আটার ডো বানিয়ে নিতে হবে। এরপর আপনি যেটা করবেন সেটি হলো রুটি মেকারের ওপর পরিমাণমতো ডো রাখবেন তারপর রুটি মেকারের হাতল ধরে চাপ দিবেন এতেই আটার ডো রুটিতে পরিণত হয়ে যাবে। এতে কোনো ধরনের বিদ্যুতের প্রয়োজন হবে না। আপনি চাইলে চালের রুটি, পরোটা ও লুচিও বানাতে পারবেন এই রুটি মেকার দিয়ে।

ইলেকট্রিক
সাধারণত মেটালের দ্বারা তৈরি হয়ে থাকে ইলেকট্রিক রুটি মেকার। আর রুটি বানানোর যে পিঁড়িটি সেটি ননস্টিক হয়ে থাকে। আপনি যখন আটার ডো বানিয়ে রুটি মেকারে দিবেন তখন রুটি বানানো ও সেঁকে নেওয়ার দুটি কাজই মেশিন নিজেই করে নিবে। আবার কিছু কিছু ইলেকট্রিক রুটি মেকারে টাইমার সেট করা থাকে। রুটি যখন ফুলে উঠবে তখন রুটি মেকার নিজে থেকেই তাপ বন্ধ করে দিবে। এতে করে রুটি পুড়ে যাওয়ার কোনো আশঙ্কাই থাকবে না। আবার কিছু ইলেকট্রিক মেকারে রুটি ফুলে গেলে নিজ থেকে সুইচ বন্ধ করে দিতে হয়। না হলে রুটি পুড়ে যেতে পারে।

ব্র্যান্ডঃ
আপনি বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ইলেকট্রিক রুটি মেকার পেয়ে যাবেন। যার মধ্যে অন্যতম মিয়াকো, ম্যাজেস্টিক, কমেট, ইগল, ওশান, ওয়ালটন, নোভা, এবং গ্রিন অ্যাপল উল্লেখযোগ্য। আর দেশীয় ব্র্যান্ডের মধ্যে পেয়ে যাবেন লাবিবাহ, সম্পূর্ণা ও মেহেদি রুটি মেকার। এই কাঠের তৈরি এই রুটি মেকারের আবার আকারভেদে তিনটি মডেল পাওয়া যায়।

দরদামঃ
আপনি যদি কাঠের তৈরি ম্যানুয়াল রুটি মেকার কিনতে চান তবে আকার ভেদে দাম পরবে ৮০০ থেকে তিন হাজার আটশত টাকা। আর যদি ষ্টেইনলেস স্টীলের ম্যানুয়াল রুটি মেকার কিনতে চান তবে দাম পরবে নয়শত টাকা থেকে বারোশ টাকা। আর ইলেক্ট্রিকের মধ্যে র্যাংগসের ইলেকট্রিক রুটি মেকারের দাম পরবে সাড়ে তিন হাজার,ম্যাজেষ্টিক ও মিয়াকো পাবেন আড়াই থেকে চার হাজার টাকার মধ্যেই, নোভা চার থেকে সাড়ে পাঁচ হাজার টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন।

যাচাই বাচাইঃ
আপনি যেখান থেকেই রুটি মেকার কিনুন না কেনো কেনার আগে বিক্রেতার কাছ থকে অবশ্যই রুটি মেকারের ব্যবহারবিধি, সুবিধা ও অসুবিধা এবং যত্নআত্তি সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিবেন। এবং বিক্রয়োত্তর সেবা কিংবা ওয়ারেন্টি কার্ডটি কেনার সময় বুঝে নিবেন। এটি খুব জরুরী শুধু গেলেন আর কিনে আনলেন তাহলে ঠকবেন এজন্য কেনার আগে এই কাজটি অবশ্যই করবেন