মেকআপ বক্সের A-Z সম্পর্কে জানুন

মেয়েদের কাছে রুপসজ্যার অন্যতম অনুষঙ্গ মেকআপ, আর সেই মেকাপের বিভিন্ন জিনিস পত্র যে বক্সে রাখা হয় সেটিকেই মেকাপ বক্স বলা হয়ে থাকে। মেকআপ বক্সে কী থাকবে, কী রাখা উচিত, দামই বা কেমন? এসব সম্পর্কে অনেকেই জানেন না, বিয়েতে নতুন বউয়ের জন্যও মেকাপ বক্স কিনতে হয়, বিয়েতে মেকাপ বক্সের কদর কয়েকগুণ বেড়ে যায়, অবস্থা এমন যে মেকাপ বক্স ছাড়া বিয়ে অধরা রয়ে যায়। এজন্য যাদের মেকআপ বক্স সম্পর্কে ধারণা নেই তাদের জন্য Feeglee.com নিয়ে এলো মেকআপ বক্সের A-Z, চলুন দেখে নেয়া যাক।

ফেসওয়াশঃ
আপনি যখনই সাজবেন তার আগে অবশ্যই ভালোভাবে মুখ পরিষ্কার করে নিবেন। আর মুখ ভালো করে পরিষ্কারের জন্য ফেসওয়াশ। আপনার মুখের ত্বকের সঙ্গে মিল রেখে ফেসওয়াশ কিনবেন আপনি। কেনার জন্য বাজারে বিভিন্ন ধরনের ফেসওয়াশ পাবেন আপনি। ভালো করে ত্বক পরিক্ষা করে নিবেন যদি আপনার ত্বক শুষ্ক হয়ে থাকে তবে অয়েলি ফেসওয়াশ কিনবেন। ২৫০ থেকে ৬৫০ টাকার মধ্যে বিভিন্ন ধরনের ফেসওয়াশ পাবেন।

ফাউন্ডেশনঃ
মেয়েরা ন্যাচারাল লুকেই সাজতে বেশি পছন্দ করেন ঘরোয়া অনুষ্ঠানগুলোতে। আর এই লুকে সাজার জন্য আপনার প্রয়োজন বিবি ক্রিম বা লাইট-মিডিয়াম কাভারেজ ফাউন্ডেশন। আর বিবি ক্রিম বা লাইট-মিডিয়াম ফাউন্ডেশনের দাম পড়বে ২৫০ থেকে ৪৫০ টাকা। ত্বক রঙ ভালো করে মিলিয়ে নিবেন কারন ত্বকের সঙ্গে মিলিয়ে ফাউন্ডেশন কেনা অনেক জরুরী। যদি আপনার ত্বক শুষ্ক হয় তবে এক টাইপের ফাউন্ডেশন আর তৈলাক্ত ত্বকের জন্যও আলাদা ফাউন্ডেশন পাওয়া যায়। ধরণ অনুযায়ী ফাউন্ডেশনের দাম পড়বে ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকা।

ফেস পাউডারঃ
এখন আপনি যদি চান মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী ও শাইন ফ্রি করবেন ত্তবে আপনার ত্বকের শেড অনুযায়ী ফেস পাউডার ব্যবহার করবেন আপনি। আবার ফেস পাউডারের দরকার হবে টাচআপের জন্যও। ফেস পাউডার এর দাম পড়বে ৩৫০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা।

কনসিলারঃ
আমাদের প্রত্যেকের চোখের নিচেই নানা কারণে ডার্ক সার্কেল দেখা যায়। ডার্ক সার্কেল বা কালো দাগ ঢাকতে কনসিলারের ব্যবহার করা হয়। আপনার ত্বক যেমন হোক আপনি তার থেকে ১-২ শেড হালকা কনসিলার ব্যাবহার করবেন। ধরন অনুযায়ী কনসিলারের দাম পড়বে ২৫০ থেকে ৫৫০ টাকা।

আইশ্যাডোঃ
মেকআপের একটু গুরুত্বপুর্ন অংশ হলো চোখের সাজ, সেটির জন্য আপনার নিজের পছন্দমতো আইশ্যাডো বেছে নিন, আর যদি উজ্জ্বল অথবা ন্যাচারাল লুক চান সেক্ষেত্রে উজ্জ্বল, ন্যাচারাল শেডের আইশ্যাডো বেছে নিন। এটি আপনি আলাদাভাবে কিনবেন না একসঙ্গে এক প্যাকেট কিনবেন এটিই আপনার ফায়দা হবে। ধরন অনুযায়ী আইশ্যাডোর দাম পরবে ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকা।

আইলাইনারঃ
মেয়েদের বেশি পছন্দ কালো রঙের আইলার। আপনি চাইলে অন্যান্ন রঙ ও বেছে নিতে পারেন যেমন নীল, সবুজ, বেগুনি। মনে রাখবেন চোখ একটি খুবই স্পর্শকাতর অঙ্গ। এ জন্য সবসময় ভালো এবং ব্র্যান্ডের আইলাইনার বেছে নিবেন চোখের সাজে। স্মাজ ফ্রি, ওয়াটারপ্রুফ, আইলাইনার ব্যাবহার করবেন এগুলো ভালো হয়ে থাকে। ধরন অনুযায়ী আইলাইনারের দাম পড়বে ১২০০ থেকে ১৬০০ টাকা।

কাজলঃ
কার না ভালো লাগে কাজল কালো চোখ! মেয়েদের অন্যতম ভালোলাগা কাজল কাজল কালো চোখ, খুব সহজেই চোখকে ফুটিয়ে তুলতে কাজলের জুরি মেলা ভার। এজন্য কাজল ছাড়া মেকআপ বক্সে অসম্পুর্ন রয়ে যায়। আপনি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কাজল পেয়ে যাবেন বাজারে। ধরন অনুযায়ী এগুলোর দাম পড়বে ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা।

মাশকারাঃ
আপনি যদি আপনার চোখের পাপড়ি ঘন ও বড় দেখাতে চান তবে আপনাকে ব্যবহার করবতে হবে মাশকারা। চোখ ওয়াইড ও সতেজ দেখায় মাশমকারা ব্যবহারে । ক্লান্তি ভাব ঢেকে দেয়। এগুলার দাম পড়বে ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা।

লিপস্টিকঃ
লিপস্টিক ছাড়া মেয়েদের মেকআপ কখনই পরিপুর্নতা পাবেনা, লিপস্টিক বাছাইয়ে বেছে নিন লাল, মেরুন, ফুশিয়া বা কপার রং। এই রংগুলো যেকোনো শাড়ির সঙ্গে সহজেই মানিয়ে যাবে ও উজ্জ্বল দেখাবে। লিপস্টিকের ধরন অনুযায়ী দাম পড়বে ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা।

ব্লাশ-অনঃ
মেকআপে অনেক তরুণী গালে হালকা গোলাপি আভা রাখতে পছন্দ করেন। আপনিও যদি এটি করতে চান তবে প্রয়োজন ব্লাশ অনের, আপনি ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে গোলাপি, পিচ কিংবা কোরাল শেড ব্যবহার করবেন। ব্লাশ অনের দাম পড়বে ৩৫০ থেকে ৮০০ টাকা।

নেইল পলিশঃ
হাত অ পায়ের নখ রাঙাতে নেইল পলিশের জুরি মেলা ভার, লাল, গোল্ডেন, মেরুন বা ফুশিয়া রং এর নেইল পলিশ ব্যাবহার করতে পারেন আপনি। ধরন অনুযায়ী নেইল পলিসের দাম পড়বে ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা।

মেকআপ রিমুভারঃ
মনে করুন আপনি পার্লারে গিয়ে সেজেগুজে আসলেন। সারাটা দিন আপনি অনুষ্ঠানে আনন্দ-ফুর্তি করে ক্লান্ত, এই কান্ত শরীর নিয়ে আবার পার্লারে গিয়ে মেকআপ তুলে আনাটা একদম অসম্ভব একটি কাজ হয়ে পরে অনেকের কাছে, আপনিও এমন টা করতে চাইবেন না। আবার দেখা যায় বেশি রাত হয়ে গেলে পার্লার বন্ধ হয়ে যায়, আপনি গিয়েও কোনো লাভ নেই। আর মুখে মেকআপ নিয়ে ঘুমানোটা তো অসম্ভব, মুখের ক্ষতি হবে। এজন্য আপনি বাসায় মেকআপ বক্সে সবার আগে মেকআপ রিমুভার রাখবেন। ধরন অনুযায়ী মেকআপ রিমুভারের দাম পড়বে ২০০ থেকে ১২০০ টাকা।

মেকআপ ব্রাশঃ
ভালো ও প্রয়োজনীয় মেকআপ ব্রাশ দরকার সুন্দর, মসৃণ মেকআপের জন্য।যদি ব্র্যান্ডেড ভালো মেকআপ ব্রাশ কিনতে চান তবে এগুলোর দাম পড়বে ১০০০ থেকে ২২০০ টাকা। আর যদি ননব্র্যান্ড বা চায়নিজ ব্র্যান্ডের মেকআপ ব্রাশ কিনতে চান তবে সেগুলো পাবেন ২৫০ থেকে ৫০০ টাকায়।

সেটিং স্প্রেঃ
মেকআপ করার পর সেটি লং টাইম ত্বকে ধরে রাখার জন্য, বা মেকআপ যাতে না ঘামে সেজন্য মুখে মেকআপ ভালোভাবে বসার জন্য সেটিং স্প্রে করা হয়। সেটিং স্প্রের দাম পড়বে ৩০০ থেকে ৬০০ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *