এখন যে পরিমানে গরম পরেছে তাতে টি-শার্টের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। এর কারন গরমের এই সময়ে টি-শার্ট পরাটা অনেক আরামদায়ক। আর এর সঙ্গে তো আছেই চলতি ট্রেন্ড অনুসারে ফ্যাশনের ভিন্নতা। কিন্তু সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ আপনার নিজের ইমেজের সঙ্গে মানানসই হওয়া। মনে রাখবেন যেটা ভালো লাগল সেটাই হুট করে কিনে ফেলবেন না। প্রথমে আপনার ফিগার অনুযায়ী টি-শার্ট বাছুন। এই ব্যাপারে জেনে নিন কিছু টিপস নিয়ে আজ হাজির হলো Feeglee.com

পারফেক্ট ফিটিংঃ-
সবসময় ফিটিংস টি-শার্ট বাছুন ঢিলেঢালা টি-শার্ট বাদ দিন। কিন্ত মনে রাখবেন এক্ষেত্রেও আপনার ফিগার স্ট্রাকচার গুরুত্বপূর্ণ। মনে করেন আপনি যদি শুকনো গড়নের সেক্ষেত্রে স্লিম ফিট টি-শার্ট পরবেন না। আর যদি ফিগার ভালো হলে সেক্ষেত্রে ফিট টি-শার্ট পারফেক্ট। টি-শার্টের হাত যেন ছোট হয় সেটা কেনার আগে দেখে নিন। তবে টি-শার্টের ঝুল যেন একদম ছোট না হয়। আবার একদম বড়ও যেন না হয়।

নেক-স্টাইলঃ-
V নেক টি-শার্টের জন্য একদম ফারফেক্ট। এর সুবিধা হলো এতে গলার অনেকাংশ দেখা যায়। যার ফলে আপনাকে অনেক হাইটের দেখাবে। আর আপনার শরীর যদি হয় অপেক্ষাকৃত চওড়া, তাহলে আপনি এই টি-শার্ট ট্রাই করুন। এতে আপনাকে বেশ ছিপছিপে দেখাবে। যাঁর কাঁধের দিক ঢালু, তাঁর জন্য আদর্শ ক্রিউ-নেক। এতে আপনাকে দেখতেও অনেক ভালো লাগে।

ফ্যাব্রিক চয়েসঃ-
আপনি যদি টি-শার্ট কিনে পরার থেকে টি-শার্ট বানিয়ে পড়তে বেশি পছন্দ করেন, সেক্ষেত্রে আপনার জন্য পিমা বা ইজিপশিয়ান কটনের কাপড় বেস্ট। এই ধরনের কাপড় ভীষণ হালকা ও দীর্ঘস্থায়ী। তাছাড়া স্ট্রেচবল হওয়ার কারণে আপনি আদর্শ শেপ পাবেন।

টাইমলেস কালারঃ-
সাদা, ধূসর ও কালো রংয়ের টি শার্ট আপনার ওয়ারড্রোবে রাখতেই হবে। কোনও অনুষ্ঠানে এই রংগুলো আপনি পরতে পারেন। সাদা টি-শার্ট যে কোনও রঙের প্যান্টের সঙ্গে ভালো মানায়। আর ধূসর রঙয়ের যে একটা আলাদা আবেদন রয়েছে সেটা তো সবারই জানা! আর এমন পুরুষ বোধহয় নেই যে কালো রং পছন্দ করেন না। ফ্যাশন সচেতন পুরুষদের মধ্যে খুব জনপ্রিয় এই রং। যে কোনও রঙের প্যান্টের সঙ্গে এই রং মানিয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *